ইন্টারনেটের অন্ধকার জগৎ ডার্ক ওয়েব ও ডিপ ওয়েব

আপনি দিনে কতক্ষন ইন্টারনেট ব্যবহার করেন? Facebook , মেইল, গুগল, টুইটার, youtube তো দেখতেই থাকেন| তাই নয় কি? কিন্তু আপনি কি জানেন? ইন্টারনেট এর এমন একটা অংশ যা আপনি চাইলেও দেখতে পাবেন না| আপনি কি জানেন? এই ইন্টারনেটের জগতেই আছে একটি অন্ধকার জগৎ| ইন্টারনেটের অন্ধকার জগৎ| ডার্ক ওয়েব| তাহলে দেখা যাক সেটা কি? ডার্ক ওয়েব বা ডার্ক নেট বোঝার আগে আমাদের কিছু জিনিস বুঝতে হবে|

ইন্টারনেট হলো ওয়ার্ল্ড ওয়াইড নেটওয়ার্ক| ওয়েব হলো ইন্টারনেট নেটওয়ার্ক এ যোগাযোগের মাধ্যম| এর ৩ টি অংশ আছে| সারফেস ওয়েব অর্থাৎ সাধারণ ব্রাউসার যেমন Google chrome , অপেরা, Mozilla দিয়ে যেসমস্ত Websites দেখা যায়| যেমন গুগল, yahoo ফেইসবুক পোস্ট, টুইটার পোস্ট, youtube , পাবলিক websites যেমন news sites যেকোন নরমাল websites এন্ড ব্লগস যা গুগল সার্চের মাধ্যমে আমরা ভিউ করতে পারি|

ডিপ ওয়েব বা ডার্ক ওয়েব কী?

ডিপ ওয়েব হলো সেইসমস্ত websites বা ওয়েবপেজ যেখানে সীমিত access দেওয়া হয়| যেমন আপনার ইমেইল লগইন করার পরের পেজ, যেখানে আপনার সমস্ত মেল্ দেখতে পারবেন| ইন্টারনেট ব্যাঙ্কিং এ লগইন করার পর যে পেজ আপনারা দেখতে পান| যেগুলি পাবলিকের জন্যে নয় শুধুমাত্র লগইন id ও পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করার পর দেখা যায় এরকম আরো উদাহরণ: হলো সরকারি তথ্য, বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের তথ্য, গবেষণার তথ্য, মেডিক্যাল তথ্য, এগুলিকে ডিপ ওয়েব বলা হয়।

সামনে এগিয়ে যেতে আইনস্টাইনের ১২টি উক্তি

এর পরের অংশটাই হলো আজকের আলোচনার মুখ্য বিষয় বস্তু অর্থাৎ ডার্ক ওয়েব| যেমন বিভিন্ন বেআইনি websites, মাদক সরবরাহকারী websites এবং গুপ্ত ও প্রাইভেট ফোরাম এগুলির উদাহরণ| ইন্টারনেটের একটি বিরাট অংশ যেখানে কোনো সরকার বা কোনো কোম্পানি ও প্রতিষ্ঠানের কোনো নিয়ম বা আইন লাগু হয় না| তাই এখানে বেশিরভাগ অপরাধমূলক কার্যকলাপের জন্যেই ব্যবহার করা হয়ে থাকে|

ডার্ক ওয়েব

রহস্যজনক কিছু বিমান দুর্ঘটনা যার বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা করা সম্ভব নয়

এখানে যে মুদ্রা ব্যবহৃত হয়ে থাকে অর্থ আদানপ্রদান এর জন্যে তা হলো ক্রিপ্টো কারেন্সী মূলতভাবে বিটকয়েন| কারা এই ওয়েবসাইটস গুলিকে ব্যবহার করে? বিভিন্ন স্পাই এজেন্সি গুলি গোপন তথ্য আদান প্রদানের জন্যে গোপন তথ্য যা সরকারের বিরুদ্ধেও হতে পারে সেগুলি ফাঁস করা হয়ে থাকে এখানে| সম্পূর্ণ ভাবে নিজেদের পরিচয় গোপন রেখে তথ্য আদান প্রদান করা হয়ে থাকে|

যোগাযোগের মাধ্যম হিসাবে ডার্ক ওয়েব

এছাড়াও অপরাধ জগতের সমস্ত তথ্যের আদান প্রদান, মাদক এর ব্যবসা, বেআইনি ব্যবসা এখানে চালানো হয়| বিভিন্ন গুপ্ত বা নিষিদ্ধ সংগঠন গুলি এখানে তথ্যের আদান প্রদান করে থাকে| সায়েবের হ্যাকার, আততায়ীদের সাথে যোগাযোগ করার জন্যে ব্যবহৃত হয় ডার্ক ওয়েব| এখানে বহু নিষিদ্ধ তথ্য, নিষিদ্ধ বই, পাওয়া যেতে পারে|

ডার্ক ওয়েব

বিভিন্ন সন্ত্রাসবাদী সংগঠন গুলিও নিরাপদে তথ্য আদান প্রদান ও যোগাযোগের মাধ্যম হিসাবে ডার্ক ওয়েবকে ব্যবহার করে থাকে| কি কি পাওয়া যেতে পারে ডার্ক sites গুলি তে? চুরি হাওয়া ক্রেডিট কার্ড তথ্য নকল পাসপোর্ট গাজা বা অন্যান্য মাদক চুরি হওয়া একাউন্ট বিটকয়েন লটারী টিকিটস নকল কুপনস নকল ডিগ্রি ও সার্টিফিকেটস বিভিন্ন ধরণের বিষ বেআইনি অস্ত্র খুন বা অপরাধ মূলক কাজের জন্যে ভাড়া করা আততায়ী অপরাধমূলক কাজের জন্যে ভাড়া করা সাইবার হ্যাকার বিস্ফোরক গোপন সরকার বিরোধী তথ্য সরকারের থেকে চুরি করা তথ্য বেআইনি তেজস্ক্রিয় পদার্থ বেআইনি ও নিষিদ্ধ বই এই sites গুলি তে আপনি সাধারণ কোনো ব্রাউসার দিয়ে যেতে পারবেন না| ডার্ক ওয়েবসাইটস গুলি সাধারণ ওয়েবসাইটস এর মতো .org .in .com দিয়ে শেষ হয় না|

কলকাতায় অবস্থিত খুব ভয়ানোক ভুতুড়ে এক স্থান

এগুলির শেষে সবসময় .onion এক্সটেনশন থাকে| তাহলে এই sites গুলিতে যাওয়ার উপায় কি? তাহলে এই sites গুলিতে যাওয়ার উপায় কি? এগুলি একমাত্র TOR ব্রাউসের এর মাধ্যমে এগুলিতে যাওয়া সম্ভব| TOR এর অর্থ হলো (The Onion Router এর নির্মাণের পিছনে আসল উদ্দেশ্য ছিল ব্যবহারকারীর পরিচয় সম্পূর্ণ ভাবে গোপন রাখা| সবসময় যে অপরাধমূলক কাজ এর মধ্যে হয়ে থাকে তা নয়|

ডার্ক ওয়েব ব্যবহার কি বেআইনি?

যেসব দেশে ইন্টারনেট ব্যবহার এর ওপর সরকার অনেক বেশি প্রতিবন্ধকতা লাগু রেখেছে সেখানেও ব্যবহৃত হয় darksite গুলি উদাহরণ স্বরূপ বলা যেতে পারে চিনে সরকারের বিভিন্ন ওয়েবসাইট ব্যবহার করার ওপর প্রতিবন্ধকতা রয়েছে ও সরকার ব্যবহারকারীদের ওপর প্রচুর নজরদারি চালিয়ে থাকে| তাই এই দেশে TOR ব্রাউসার ও ডার্ক ওয়েব ব্যবহারের প্রবণতা অনেক বেড়ে গিয়েছে|

ডার্ক ওয়েব ব্যবহার কি বেআইনি?  অবশ্যই বেশিরভাগ ভাবে ডার্ক ওয়েব এ অপরাধ মূলক কাজ কর্ম হয়ে থাকে তাই ডার্ক ওয়েব এ আপনার গতিবিধিকে সন্দেহজনক বলে ধরা হতে পারে| বেশির ভাগ দেশে ডার্ক ওয়েব র ওপর কোনো প্রতিবন্ধকতা না থাকলেও আপনি যেকোনো সময় আইনের নজরদারিতে আস্তে পারেন| তাই সাবধান| এখানে না যাওয়াটাই ভালো| আর অবশ্যই ডার্ক নেট এ নিয়মিত ঘোরাফেরা আপনার ডিভাইস ও তথ্যের এর সিকিউরিটি নষ্ট করতে পারে| আপনার হয়তো ধারণাই নেই কি চমক অপেক্ষা করছে আপনার জন্যে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.