সামনে এগিয়ে যেতে আইনস্টাইনের ১২টি উক্তি

আলবার্ট আইনস্টাইন সর্বকালের সেরা বিজ্ঞানীদের মধ্যে একজন। স্কুল জীবনে তিনি ছিলেন ব্যর্থ, অপদার্থ। একবার তাকে কোন এক শিক্ষক বলেছিলেন, ওকে দিয়ে কিচ্ছু হবে। ও একটা অপদার্থ। কিন্তু সেই অপদার্থ মানুষটি কিনা আজকে সর্বকালের সেরা বিজ্ঞানী।

তার এক আপেক্ষিকতার সূত্র পুরো বিজ্ঞানকে নতুন দিকে ঘুড়িয়ে দিয়েছে । তিনি পদার্থ বিজ্ঞান ও মহাকাশ সম্পর্কিত বিজ্ঞানী নিউটনের সূত্রকে নতুন রুপ দান করে বিজ্ঞানের এক অপরিহার্য অবস্থানে নিয়ে এসেছেন। এই সূত্রের উপর ভিত্তি করেই এগিয়ে যাচ্ছে বর্তমান বিজ্ঞান।

সামনে এগিয়ে যেতে আইনস্টাইনের ১২টি উক্তি

বিজ্ঞানী আইনস্টাইনের একটি অসাধারণ গুণ ছিল, তিনি বিজ্ঞানের জটিল বিষয়গুলোকে বেশ মজার ঘটনা দিয়ে উপস্থাপন করতে পারতেন । উনি শুধু একজন বড় বিজ্ঞানীই ছিলেন না, একজন দার্শনিকও। জীবন নিয়ে ছিল তার গভীর পর্যবেক্ষণ। আজ পাই ফিঙ্গার্স মোটিভেশন থেকে তার এমন কিছু অমর কথা আপনাদের জন্য তুলে ধরবো, যে কথাগুলো থেকে পাবেন জীবনে সামনে এগিয়ে যাওয়ার নতুন প্রেরনা।

প্রবল ইচ্ছাশক্তি নিয়ে ছুটতে হবে স্বপ্নের পিছুপিছু এ পি জে আব্দুল কালাম

যে কখনো ভূল করেনি, সে কখনো নতুন কিছু করার চেষ্টাই করেনি। আমি চিন্তা করেছি মাসের পর মাস, বছরের পর বছর। আমার চিন্তাগুলো ৯৯ বারই ভুল হয়েছে, তবে শততম বারে আমি সফল হয়েছি। আপনি যদি অন্যদের অনুসরন করে তাদের সাহায্য নিয়ে সামনে এগিয়ে যান, তবে হয়তো একদিন তাদের অবস্থানে পৌঁছাতে পারবেন।

আইনস্টাইনের

কিন্তু আপনি যদি নিজের পথটা নিজেই তৈরী করে চলেন, তাহলে হয়তো এমন এক সাফল্যমন্ডিত স্থানে পৌঁছাবেন, যেখানে আজ পর্যন্ত কেউই পৌঁছাতে পারেনি। আমি ভেড়ার নেতৃত্বে সিংহ বাহিনীকে ভয় পাই না, সিংহের নেতৃত্বে ভেড়ার পালকে ভয় পাই। গতকাল থেকে শিখুন, আজকের দিনটিকে নিয়ে বেঁচে থাকুন, আশাটা করুন আগামীকালের জন্যে।

প্রশ্ন করা থামাবেন না

তবে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে প্রশ্ন করা থামাবেন না। আপনাকে আগে খেলার নিয়মটি শিখতে হবে, তারপরেই আপনি অন্যদের চেয়ে ভাল খেলতে পারবেন। মহৎ ব্যক্তিরা সব সময় ভয়ানক বাধার সম্মুখীন হয় সংকীর্ণ চিন্তার মানুষদের কাছে থেকে। যারা আমাকে সাহায্য করে নাই, আমি তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ। কারণ তারা সাহায্য না করায় আমি নিজের কাজ নিজে করতে শিখেছি।

জীবন যেখানে যেমন, পৃথিবী সেখানে তেমন

অমরত্বের রহস্য যে জায়গায় লুকিয়ে আছে

শান্তি কখনোই শক্তি প্রয়োগ করে আনা যায় না, একমাত্র বোঝাপড়ার মাধ্যমেই তা সম্ভব। এই পৃথিবী কখনো খারাপ মানুষের খারাপ কর্মের জন্য ধ্বংস হবে না, যারা খারাপ মানুষের খারাপ কর্ম দেখেও চুপ করে থাকে, তাদের জন্যই পৃথিবী ধ্বংস হবে। স্কুলে যা শেখানো হয়, তার সবটুকুই ভুলে যাবার পর যা অবশিষ্ট থাকে তা-ই হলো প্রকৃত শিক্ষা।

সাফল্যবান মানুষ না হয়ে বরং মূল্যবান মানুষ হওয়ার চেষ্টা করতে হবে । ধন্যবাদ এতক্ষণ আমাদের সাথে থাকার জন্য। এই আর্টিকেলটি যদি আপনাকে সামান্য পরিমাণে অনুপ্রাণিতও করে থাকে তাহলে আপনিও পারেন আর্টিকেলটি শেয়ার করে আরও কিছু মানুষকে অনুপ্রাণিত করতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.